‘কতকথা কথকতা’ সাহিত্যের আড্ডা বসলো শ্যামবাজারে

   

সাহিত্য ডেস্ক: গত ৯ই জুন রবিবার বিকেল পাঁচটায় ‘কতকথা কথকতা’ প্রথম সাহিত্য আড্ডা বসলো শ্যামবাজারে। রবিবাসরীয় এই সাহিত্য আড্ডার মেজাজ বৈঠকী হলেও চাল মোটেও লঘু নয়। গল্প- কবিতা- মুক্তগদ্যে মুখরিত হয়ে উঠেছিল এই সন্ধে।
কবি মৌমিতা পালের আমন্ত্রণে অতিথিরা একে একে সকলেই উপস্থিত হলেন যথাযথ সময়। ‘কতকথা কথকতা’-র আড্ডা বসে পুরোনো কলকাতার বৈঠকী ঢঙে। শহরের বুকে নতুনতর এই আড্ডায় বিশেষ অতিথিরূপে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কবি অজিতেশ নাগ। অনুষ্ঠানের সূচনা হল সর্বজিৎ সরকারের গল্পগ্ৰন্থ ‘বিজন ম‍্যাজিশিয়ান’ থেকে গল্প পাঠের মধ্যে দিয়ে। এরপর কবি অরুনাভ রাহা রায় তার লেখা দুটি কবিতা পড়ে শোনালেন। এর মাঝেই আড্ডায় অন্য মেজাজ এনে দিল গিটারের স্ট্রিংস আর বিশ্বজিৎ কর্মকার এর গান। কবি প্রগতি পড়ে শোনালেন কবিতা ‘বিলো দ্য বেল্ট’, ‘গুণবতী ভাই আমার’ গদ্য।

আড্ডায় কবি সৌম্যজিৎ আচার্য তাঁর লেখা ‘অরুণাভ আর অভিষেক’ গল্প পাঠ করলেন। এ এক অস্তিত্ব সংকটের গল্পকথা। কবি সুপর্ণা চট্টোপাধ্যায় তার গল্পগ্ৰন্থ  ‘হারানো স্টশনে যারা একা’ থেকে পাঠ করলেন ‘আড়াল’ এবং ‘শেষ দেখা’। এছাড়া এদিনের আড্ডায় কবি প্রশান্তর সরকারের কবিতা ‘রিপু’ এবং ‘যেভাবেই যাও’ উপস্থিত সকলকেই কোথাও যেন নাড়িয়ে দিয়ে গেছে।

আড্ডার এক পর্যায়ে অণির্বান বসু পাঠ করতে শুরু করলেন গল্প ‘লা দিভিনা কোম্মেদিয়া’। দেশবদল থেকে শুরু করে রাজনৈতিক পরিবর্তন এবং তার‌ই মাঝে প্রেম, বিরহ, বিচ্ছেদে গাঁথা এক মনকাড়া গল্প। এই আড্ডার চমক ছিল কবি অজিতেশ নাগের কন্ঠে গান। গানে, গল্পে, কবিতায় জমজমাট এক অনুষ্ঠানের সাক্ষী হয়ে র‌ইলো সকলেই। নান্দীকারের নাট্যদলের প্রসূতিগৃহের নিকট এই সাহিত্য আড্ডা উত্তর কলকাতার আন্তরিকতা ও শিল্পচর্চার মেজাজকেই চিনিয়ে দেয়। উদ্যোগতারা জানান দ্বিতীয় আড্ডা সংঘটিত হবে ফের আগামী মাসে। পরবর্তী অতিথি তালিকা প্রকাশিত হবে সামনের মাসের গোড়ার দিকে।

Facebook Comments