দীপান্বিতা বিশ্বাস-এর কবিতা

পুষে রাখা আলো

আমি কখনো রাতের নদী ছুঁয়ে দেখিনি।
কত জ্যোস্না, কত পাখিদের ঘুম লুকিয়ে আছে জলের শরীরে।
রাত শেষ হলে পাখিদের কোলাহল বাড়ে,
আমি হারিয়ে যাই নিবিড় নীরবতায়।

আজকাল একদম কবিতা লিখতে পারিনা,
কবিতা নিয়ে ভাবতে বসলে একে একে সব হারিয়ে যাওয়া মানুষের ক্ষত দেখতে পাই।
চূর্ণী, তিস্তা, দামোদর সব হারিয়ে বরাদ্দ পানাপুকুরে সারি সারি বকেদের কোলাহল দেখি।
দুপুররোদে চোখে ঘুম নামিয়ে যায় ঠান্ডা বাতাস,
আজ বুঝি রোদ্দুর আমার নয়।

শালপাতায় ক্লান্তি জমে, রাত্রি জুড়ে শুধুই অন্ধকার। দেওয়ালে টাঙানো ক্লান্ত এক মায়ের ছবিতে এখনো হলুদ লেগে।
অপার নৈঃশব্দ্য গল্প লেখে।
অবিশ্বাস-বিশ্বাস সবটাই এখন বড্ড ক্লিশে,
মুঠোবন্দি সম্পর্কমালা’কে নিমেষে উড়িয়ে দেওয়া যায় খোলা আকাশে।
শরীরে অন্য এক পৃথিবী পুষে রাখলেও আলো টুকু জমা আছে পাহাড়চূড়ায়।

কোনোদিন ভোরের শিশির ছুঁয়ে দেখলে-
সেখানে এক মাঠ রৌদ্র, জমানো অভিমান,
আকাশ সমান মরুভূমি আর স্বপ্নের সংসার পাওয়া যাবে।

Facebook Comments