৩৩ বছর ধরে উপোস করে আছেন ছত্তিশগড়ের পিল্লি দেবী

খবরটি সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে একটি প্রথম শ্রেণির বাংলা দৈনিকে। এবং অনেকেই হয়তো অবাক হয়ে যাবেন ঘটনাটি জেনে। সারাদিন ঈশ্বরের আরাধনা ও নামকীর্তন করে দিনের শেষে এক কাপ কালো চা খেয়ে কাটিয়ে দিলেন এই মহিলা। ঘটনাটি এক আধ দিনের নয়। টানা ৩৩ বছর ধরে চলছে এই নিয়ম।

ছত্তিশগড়ের এই মহিলার নাম পিল্লি দেবী। অবশ্য স্থানীয় লোকেরা তাকে চা ওয়ালী চাচি নামেই ডেকে থাকে। পিল্লি দেবীর বর্তমান বয়েস ৪৪ বছর। তিনি যখন ১১ বছরের বালিকা তখন থেকেই নাকি তিনি এই নিয়ম মেনে আসছেন। মহিলাটির পিতা রাতি রাম জানিয়েছেন, ষষ্ঠ শ্রেণিতে পরার সময় একবার জেলাস্তরের একটি টুর্নামেন্টে খেলতে যান তিনি। ফিরে আসার পর চা ছাড়া আর কিছুই খেতে চাইলেন না। প্রথম প্রথম চায়ের সঙ্গে বিস্কুট বা পাউরুটি নিলেও পরে এক কাপ কালো চা ছাড়া তিনি আর কিছুই খেতেন না। এমনকি জল পর্যন্ত না।

মহিলাটির ভাই বিহারিলাল জানান, ঘরের বাইরে তিনি বেরোন না। ঘরেই শিবের আরাধনা করেন। এবং সারাদিনের শেষে মাত্র এক কাপ চা খেয়ে শুয়ে পড়েন। এটাই তার ডেইলি রুটিন। কিন্তু কীভাবে একটা মানুষের পক্ষে এমনটা সম্ভব ? কীভাবে বেঁচে রয়েছেন তিনি ?

চিকিৎসকেরা বলছেন, একজন মানুষের পক্ষে এটা পুরোপুরিই অসম্ভব। কারণ চায়ের মধ্যে কোনো ক্যালরি থাকে না। আর থাকলেও সেটা এতটাই সামান্য যে তাতে জীবীত থাকা একজন মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই পিল্লি দেবী শুধু তার পরিবারের কাছে নয়। গোটা চিকিৎসাবিজ্ঞানে এক পর বিস্ময়।

Facebook Comments