নিজের ঘর নিজেই পরিষ্কার রাখতে পারবেন একস্ট্রা এফোর্ট ছাড়াই। শুধু কয়েকটা অভ্যাসের পরিবর্তন দরকার

গোছানো ঘর পছন্দ করি আমরা সবাই। কিন্তু সারাদিনের কাজের ভিড়ে ঘর গোছানোর জন্য আলাদা করে সময় বের করতে পারি না অনেকেই। ঘর পরিষ্কার থাকলে সারা ঘরে পজিটিভ এনার্জি বিচরণ করে। নিজের ঘর পরিষ্কার ও পরিচ্ছন্ন থাকলে নিজের মনে শান্তিও বিচরণ করে। কাজেও আলাদা এন্থু আসে।

নিজের এলোমেলো ঘর দেখে নিজেকেই লজ্জিত হতে হয় কখনও কখনও। ঘর গোছানোর জন্য আলাদা সময় বের না করে এমন কিছু অভ্যাস গড়ে তুলুন যাতে কোনও কষ্ট ছাড়াই ঘরটা সবসময় গোছানো দেখায়। চলুন দেখে নিই সেই অভ্যাসগুলো।

 

সকালেই  বিছানা গুছিয়ে রাখুন

প্রতিদিন সকালে ঘর থেকে বের হওয়ার আগে অথবা বেডরুম থেকে বের হবার আগেই বিছানাটা গুছিয়ে ফেলুন। বিছানাটাকে গোছানো, পরিপাটি দেখা গেলে আপনার ঘরটা সুন্দর দেখা যাবে, কারণ বেডরুমের সবচাইতে বড় আসবাব বিছানাটি। আর সকালে ঘর গোছানোর এই কাজটি করলে আপনার দিনটাও শুরু হবে প্রশান্ত মনে।

প্রতিদিন কিছু পরিমাণে কাপড় ধুয়ে রাখুন

প্রতিদিনের কাজ দিনের দিন সেরে রাখুন। কাজ জমা করে রাখলে বেশি কাজ জমে যাবে আর তখন হিমশিম খেতে হবে। আর ঘরের কোণে কাপড় ডাই হয়ে পড়ে থাকলেও তা দেখতে ভালো লাগে না। কেউ নিজে, কেউ গৃহকর্মীকে দিয়ে আবার কেউ ওয়াশিং মেশিনে কাপড় ধোয়ার কাজটি করেন। পদ্ধতি যেটাই হোক না কেন, চেষ্টা করুন প্রতিদিনই কিছু না কিছু কাপড় ধুয়ে রাখতে। এতে কাপড়ের স্তূপ বড় হবে না। আর আপনি যদি একা থাকেন, তাহলে সপ্তাহে দুই-তিন দিন কাপড় ধুতে পারেন।

জিনিসপত্র গুছিয়ে রাখতে বাস্কেট ব্যবহার করুন



ঘরে অনেক কিছুই থাকে যা সব সময়ে ব্যবহার করা হয় বলে কেবিনেট বা ক্লজেটে গুছিয়ে রাখা সম্ভব হয় না। কিন্তু এগুলোর জন্যই ঘর অগোছালো হয়। আপনি একেক ধরণের জিনিসের জন্য একেকটি বাস্কেট রাখুন ঘরের বিভিন্ন জায়গায়। সুন্দর একটি বাস্কেট ঘরের শোভাও বাড়াবে অনেকটা।

বাইরে পরার কাপড় ঘরে এসে গুছিয়ে রাখুন

বাইরে থেকে এসে বিছানায় বা চেয়ারে পরনের কাপড় ফেলে রাখতে ইচ্ছে হতেই পারে। কিন্তু এই কাপড় হ্যাঙ্গারে তুলে রাখার অভ্যাস করুন। এতে আপনার পোশাক এবং ঘর দুটোই উপকৃত হবে। কারণ ঘরের যেখানে সেখানে কাপড় ফেলে রাখলে তা ঘরের শোভা নষ্ট করে। আপনার নিজেরও ভালো লাগবে না। তাই একটু কষ্ট হলেও যেখানে সেখানে কাপড় ছড়িয়ে রাখার অভ্যাসকে প্রশয় না দেওয়া উচিত।

রান্নাঘর ময়লা রেখে ঘুমোবেন না

সব সময় ঘুমোতে যাবার আগে রান্নাঘর পরিষ্কার করে ফেলুন। এঁটোবাসন-হাঁড়ি পরের দিন ধোবেন ভেবে রেখে দিলেন, সকালে দেখা গেল বের হওয়ার তাড়ায় কাজটা হল না, তখন ঘরে ফিরে এত ময়লা পরিষ্কার করে রান্না করতে গিয়ে মেজাজটা যাবে চটে। তাই রাতেই কাজটি করে রাখুন। ঘরে এসে আর ময়লা-দুর্গন্ধ সামলাতে হবে না প্রতিদিন।

আগে থেকে পরিকল্পনা করে কাজ করুন

একটি অনুষ্ঠান আছে, আগে থেকেই প্ল্যান করে রাখুন কী কী পোশাক ও অ্যাকসেসরিজ পরবেন এবং তা গুছিয়ে রাখুন। শপিং করতে যাবেন, কী কী লাগবে লিস্ট করুন। এই ধরণের কাজগুলো করলে আপনি তাড়াহুড়ায় কোনও ঝামেলায় পড়বেন না, ঘরটাও অগোছালো হবে না।

 

Facebook Comments