রূপচাঁদা শুঁটকির রেসিপি

শুঁটকি খেতে অনেকেই ভালোবাসেন আবার অনেকেই পছন্দ করেন না। নাক সিটকান। আবার অনেকেই আছেন যারা শুঁটকি খেতে বেশ পছন্দ করেন কিন্তু সুস্বাদুভাবে রাঁধতে জানেন না। ভালো করে রান্নার পরও বোটকা গন্ধ থেকে যায়। যারা শুঁটকি খেতে ভালোবাসেন তারা বেশ ভালো করেই জানেন দুপুরে ধোঁয়া ওঠা গরম সাদা ভাতের সাথে ঝাল করে রান্না করা রূপচাঁদা শুঁটকি এর মেলবন্ধনটা কিরকম। কিভাবে সকালের এই মুখরোচক খাবারটা মুহূর্তের মধ্যেই আপনার মন ও শরীরকে চাঙ্গা করে তুলতে পারে। তাই আজকে আপনাদের জন্য রইলো সুস্বাদু রূপচাঁদা  শুঁটকির  চমকপ্রদ এক রেসিপি!

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

রূপচাঁদা শুঁটকি ১টি

পেঁয়াজকুচি ২ কাপ

তেল পরিমাণ মতো

আদাবাটা পরিমাণ মতো

আপনার ঝাল সহ্য করার ক্ষমতার উপর মূলত নির্ভর করবে কতটুকু কাঁচামরিচ ব্যবহার করবেন এই রান্নায়, তবুও ৫ থেকে ৬টা কাঁচামরিচ দেওয়া উচিত, রান্নাটাকে সুস্বাদু করার জন্য।



রসুনকুচি আধা কাপ

টমেটোকুচি আধা কাপ

ধনেগুঁড়া ১/২ চা-চামচ

মরিচগুঁড়া ৩ চা-চামচ

হলুদগুঁড়া দেড় চা-চামচ

লবণ স্বাদ মতো

পদ্ধতিঃ

রূপচাঁদা শুঁটকি প্রথমে পরিষ্কার করে ধুয়ে, অন্তত ২ ঘণ্টা জলে ভিজিয়ে রাখুন। এতে শুঁটকির সাথে থাকা বালি ও ময়লাগুলো ঝরে যাবে। ভিজিয়ে রাখার পর শুঁটকি নরম হয়ে এলে ছোট ছোট করে কেটে নিন। এবার প্যানে পরিমাণ মত তেল দিন।

তেল গরম হলে তাতে পেঁয়াজকুচি, রসুনকুচি, সামান্য আদাবাটা, ধনেগুঁড়া, মরিচ, হলুদ, তেল, লবণ, কাঁচামরিচ আর টমেটো কুচি সহ সব মসলা ভালো করে আস্তে আস্তে ভেজে নিন।

পেঁয়াজ নরম হয়ে এলে এবং হালকা বাদামী বর্ণ ধারণ করলে তাতে রূপচাঁদা শুঁটকি দিয়ে কিছুক্ষণ ভাজতে থাকুন। এবার অল্প জল দিয়ে ভালো করে কষিয়ে ঢেকে দিন। কিছুক্ষণ পর ঢাকনা খুলে দেখুন, যদি জল কমে তরকারিটা মাখা মাখা হয়, তাহলে তাতে কাঁচামরিচ দিয়ে ওভেন থেকে নামিয়ে ফেলুন।

সবশেষে গরম গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন। উপভোগ করুন মজাদার রূপচাঁদা শুঁটকি মাছের তরকারি।

Facebook Comments