সরু প্যাঁচের রসালো ‘জিলাপি’ তৈরি করে ফেলুন বাড়িতেই

বাঙালীর মিষ্টি প্রতি আকর্ষণ থাকবেই। আর জিলাপি খেতে কে না পছন্দ করে। জিলাপির প্যাচ বাকধারাটা যতই খটমট হোক না কেন রসে টইটুম্বুর মুচমুচে জিলাপির স্বাদই আলাদা। যদি সন্ধ্যেবেলা বাড়িতেই বানিয়ে ফেলা যায় মুচমুচে অথচ রসে টইটুম্বুর জিলাপি তাহলে কেমন হবে? গরম সেই জিলাপির কথা ভেবে নিশ্চয়ই জিভে জল আসছে? হ্যাঁ আজকের রেসিপিতে থাকলো সুস্বাদু মুচমুচে রসালো জিলাপির সবচাইতে সহজ ও পারফেক্ট রেসিপি।

উপকরণ:

১ কাপ ময়দা, ২ টেবিল চামচ কর্ন ফ্লাওয়ার, ৩ চিমটি ইষ্ট, ২ চিমটি খাবারের রঙ, ১ চিমটি লবণ, পরিমাণ মতো হালকা গরম জল, ১ কাপ চিনি, পৌনে ১ কাপ ঠান্ডা জল,  ২টি এলাচ আর ভাজার জন্য তেল।

কীভাবে বানাবেন:

প্রথমে ১টি বাটিতে ময়দা, কর্ণ ফ্লাওয়ার, ইষ্ট, খাবার রঙ ও লবণ ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর এতে উষ্ণ গরম জল অল্প করে মিশিয়ে খুব ঘনও নয় আবার পাতলাও নয় এমন মিশ্রন তৈরি করে নিন। মিশ্রন তৈরি করার সময় সর্তকতার সাথে অল্প করে জল মেশাবেন। এরপর মিশ্রনটিকে ঘন্টাখানেক ঢেকে রাখুন।

এই সময়ে একটি প্যানে চিনি, জল ও এলাচ দিয়ে ফোটাতে থাকুন। জল ফুটে ওঠার পর ৪-৫ মিনিটের মধ্যে চিনির শিরা তৈরি করে রাখুন।

Follow Us on facebook :

এবারে রেস্টুরেন্টের সসের বোতল বা ছোটো মুখের কোনো বোতলের ভেতর ঢেকে রাখা মিশ্রনটিকে নিন। যদি এগুলোর কোনটাই না থাকে তাহলে একটি প্ল্যাস্টিকের ব্যাগ নিয়ে মিশ্রনটি ভরে এর এক কোণে ছোট্ট ফুটো করে নিন। এতে জিলাপি বানাতে সুবিধা হবে।

এরপর ফ্রাইং প্যানে তেল গরম করে নিন। গরম তেলে বোতল বা প্ল্যাস্টিকের প্যাকেটে রাখা মিশ্রনটি জিলাপির প্যাঁচের মতো তৈরি করে ফেলতে থাকুন। উল্টে-পাল্টে লালচে করে ভেজে সরাসরি শিরায় দিয়ে দিন। চিনির শিরাতে জিলাপি ডুবিয়ে রাখুন ২ মিনিট। ব্যস, পরিবেশনের জন্য তৈরি হাতে গরম জিলাপি।

Facebook Comments