অভ্যাস পরিবর্তন করলে টাকা জমানো কোনও ব্যাপারই না!

 

প্রত্যেক মানুষের জীবনেই অর্থের বা টাকার প্রয়োজন আছে। টাকা সকলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ। টাকা জমানোর ইচ্ছে বা চেষ্টা কমবেশি সকলেরই থাকে। কিন্তু বছরের শেষে এসে দেখা যায় ভাড়ার শূন্য। জীবনে কখন কী পরিস্থিতি আসবে আমরা কেউ জানিনা। প্রয়োজনের সময়ে অনেকেই হা-হুতাশ করেন সঞ্চয় না থাকায়।

কেউ কেউ আছেন যাদের কাছে সবসময় ভালো সঞ্চয় থাকে। তবে কি এই মানুষগুলো আমাদের থেকে আলাদা? না, মোটেই না। তবে তাদের এমন কিছু অভ্যাস আছে যার ফলে সঞ্চয় নিয়ে কখনোই তাদের চিন্তা করতে হয় না। এই অভ্যাসগুলো আপনিও যদি রপ্ত করতে পারেন, তাহলে টাকা জমানো তেমন কিছু ব্যাপার না।

কম বয়স থেকেই টাকা জমানোর অভ্যাস করা দরকার। অনেকেই ছোটবেলা থেকে মাটির ভাড়ে টাকা জমানোর অভ্যাস করে। শুধু তাই নয়, আপনার জমানোর ইচ্ছে থাকলে তা আপনি এই মুহূর্ত থেকেও শুরু করতে পারেন। আজ করবো, কাল করবো ভাবলে আর জমানো হবে না।

জীবনে যেমন ভালো সময় সময় আসে, আসে খারাপ সময়ও। আর খারাপ সময় বলে কয়ে আসে না। আর খারাপ সময়ে অর্থসংকট একটা বিশাল ফ্যাক্টর। তাই বুঝেশুনে খরচ করতে না পারলে আপনি কখনই সঞ্চয় করতে পারবেন না।

আপনার কিছু কিনতে খুব ইচ্ছে হতে পারে। কিন্তু সেটা কি আসলেই আপনার সত্যিই দরকার? ঠান্ডা মাথায় ভাবুন। যারা সঞ্চয় করেন তারা অ্যাসেটে জোর দেন, অযথা বিলাসিতা দেখান না। নিজের অভ্যাসে পরিবর্তন আনতে পারলে দেখবেন টাকা জমানো কোনো ব্যাপারই না।

অনেকেই ভাবেন নিয়মিত বেড়াতে যাওয়া, নতুন নতুন পোশাক কেনা বা রেস্টুরেন্টে খেতে যাওয়া দরকারি, আসলে কিন্তু তা নয়! যারা সঞ্চয় করতে পটু, তারা নিজেদের জন্য আসলেই যেসব দরকারি সেসব ক্ষেত্রেই খরচ করেন। অন্যান্য ক্ষেত্রে তারা সামলে চলেন।

ভাবতেই পারেন প্রয়োজনের বাইরে একটু আধটু খরচ তো করাই যায়। কিন্তু আপনি বুঝে ওঠার আগেই দেখবেন অনেকগুলো ছোট ছোট খরচ মিলে একটা বড় অংকের টাকা বের হয়ে যাচ্ছে আপনার পকেট থেকে। তাই আজ থেকে, পারলে এখন থেকেই অল্প অল্প করে সঞ্চয় শুরু করুন। অভ্যাসগুলো রপ্ত হয়ে গেলেই দেখবেন, আপনার সেভিংসও অসময়ে পাশে দাঁড়াচ্ছে। আর তার জন্য এমন কিছু কাঠখড় পোড়াতে হচ্ছে না।



Facebook Comments