সকালে ঘুম থেকে উঠে ব্যায়াম করতে ভুলবেন না

আমাদের সারাদিনের ক্লান্তি দূর হয়ে পুরোপুরি রিফ্রেশ হয়ে উঠি রাত্রে ঘুমানোর ফলে। কিন্তু সারাদিনের কাজ করবার নতুন শক্তি আমরা চাইলেই সঞ্চিত করে রাখতে পারি। যদি সকালে উঠেই কিছুটা যোগব্যায়াম অভ্যাস করি তাহলে ব্যাপারটা অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। সকালে ঘুম থেকে আধ ঘণ্টা আগে উঠে আমরা চাইলেই কিছুক্ষণ যোগব্যায়াম করে রাখতে পারি। এতে আমাদের শরীর যে শুধু ভালো থাকে তা নয়। আমরা সারাদিনের এনার্জি এই কিছুক্ষণের ব্যায়ামের মাধ্যমেই জমিয়ে রাখতে পারি।

আমাদের উপমহাদেশে উদ্ভাবিত যোগ ব্যায়াম আজ সারা পৃথিবীতে সমাদৃত, অথচ আমরা অনেকে এ বিষয়ে অজ্ঞ। তবে যোগ ব্যায়ামের ওপরে সুলিখিত অনেক বই আজকাল পাওয়া যায়। এসব পড়ে এবং সম্ভব হলে কোনো বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে সঠিক ধারণা পেতে পারেন। এ ব্যায়ামের মূল বৈশিষ্ট্য হচ্ছে বিভিন্ন দেহভঙ্গিমা যাকে আসন বলা হয়। এক-এক আসনে দেহে এক-একভাবে চাপ পড়ে যা দেহের এক-এক অংশের উপকার সাধন করে। এসব আসনে কিছুক্ষণ থাকার পর একটি বিশেষ আসনে বিশ্রাম নিতে হয় যাকে বলে শবাসন।

For more update follow Us on facebook :


চার বছর বয়স থেকেই ব্যায়াম শুরু করা উচিত। ব্যায়াম অনেক রকম। যেমন হাঁটা, সাঁতার কাটা ও দৌড়-ঝাঁপ ইত্যাদি ব্যায়াম, সাইকেল কিংবা অন্যান্য যন্ত্রপাতি চালিয়ে ও ভারি কিছু ওপরে তোলার মাধ্যমে ব্যায়াম, দেহের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ মালিশের দ্বারা ব্যায়াম এবং দেহকে বিশেষ ভঙ্গিমায় স্থির রেখে যোগ ব্যায়াম। সব ব্যায়ামেই উপকার হয়। তবে বয়স, শারীরিক অবস্থানুযায়ী প্রয়োজন, পরিবেশগত সুবিধা, সময়ের সীমাবদ্ধতা ও মানসিক প্রবণতার কথা ভেবে ব্যায়াম বেছে নেয়া ভাল। কিন্তু কিছু ব্যায়াম আছে যা একেবারে শয্যাশায়ী বা চলাফেরায় অক্ষম না হলে সকলের পক্ষেই করা সম্ভব।

যোগব্যায়াম করার ক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে একটি নির্দিষ্ট সময় বেছে নিতে হবে। এরপর সপ্তাহে যে কোনো একদিন বাদ দিয়ে সেটি অভ্যাস করুন। বিশেষ করে সকালে ঘুম থেকে উঠে যোগব্যায়াম করতে ভুলবেন না। এটি আমাদের সারাদিনের শক্তি সঞ্চয় করে রাখতে সাহায্য করে থাকে।

Facebook Comments