ঘুম থেকে উঠেই এই কাজগুলো করবেন না

এখন শীত পড়ছে। সহজে বিছানা ছাড়তে কারই না ইচ্ছে করে। তবুও উঠতে তো হবেই। কিন্তু সে শীত হোক বাঁ গ্রীষ্মকাল, সকালে ঘুম থেকে উঠে আমরা যেসব কাজ করি তার মধ্যে বেশ কিছুই সঠিক নয়। যার প্রভাব আমাদের পুরো দিনটার উপরই পড়ে। একটু সতর্ক থাকলেই এগুলো ঠিকঠাকভাবে করা সম্ভব। আর কাজগুলো ঠিকভাবে করতে পারলেই একটা সুন্দর দিনের সূচনা করা যায়। আসুন জেনে নিই কী সেই কাজগুলো।

ঘুম ভাঙলেই কফি নয়
মেডিকেল সায়েন্স বলছে, আমাদের শরীরের কর্টিসল নামের এক ধরনের হরমোনের উৎপাদন হয় দেখেই আমরা ঘুম থেকে উঠতে পরি। কিন্তু কফি এই কর্টিসল উৎপাদনে বাধার সৃষ্টি করে। এর ফলে একটা সময় দেখা যায় ক্যাফিনের প্রতি শরীর আরো বেশি আসক্ত হয়ে পড়ে এবং শরীর স্বাভাবিকভাবে কর্টিসল তৈরি করতে পারে না। তাই ঘুম থেকে উঠেই কফি নয়। একটু বাদে কফি নিন।

তন্দ্রাভাব আসতে দেবেন না
সকালে ঘুম থেকে উঠে খানিকক্ষণ ধরে ঝিমোন। কিন্তু এর ফলে আপনার মস্তিস্ক পুনরায় সেই ঘুমের সাইকেলে নিয়ে যায়। ফলে আপনার গভীর ঘুমের অনেকটাই প্রভাব চলে আসে শরীরে। আর এজন্য আপনি সারাদিন টালমাটাল বোধ করবেন। তাই অ্যালার্ম শোনার সঙ্গে সঙ্গে যত কষ্টই হোক ঘুম থেকে উঠে পড়ুন। এতে সারাদিন ঘুমঘুম ভাবটা থাকবে না। তরতাজা মন দিয়ে কাজ করতে পারবেন।

অপ্রয়োজনীয় কোনো সিদ্ধান্ত সকালেই নেবেন না
ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ প্রতিদিন একই ধরনের টি-শার্ট পরেন। তার মতে এতে দৈনন্দিন সিদ্ধান্ত নেওয়ার তালিকা থেকে অন্তত একটা বিষয় তো কমলো। পোশাক নির্বাচনে যে বাড়তি সময়টা নষ্ট হয় সেই এনার্জিটুকু তিনি অন্য কাজে ব্যয় করতে বেশি আগ্রহী। তাই সকালের সময়টা বাঁচাতে অপ্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

এমনকি ই-মেইল চেকও নয়
সকালে উঠেই ই-মেইলে চোখ বুলানোর অর্থ হলো আমি কাল কি কি মিস করলাম সেই ফ্রেমে ফেলে দিনটাকে সাজানো। এভাবেই প্রযুক্তি আমাদের স্বাভাবিক জীবনকে বাধাগ্রস্থ করছে বলে বক্তব্য গবেষকদেরও। এভাবে একটি নেতিবাচক ভয় দিয়ে দিন শুরু করা মোটেও কোনো ভালো কাজ নয়। তাই ইমেইল চেক না হয় একটু পরেই করবেন।

 

Facebook Comments