ঘর সাজাতে ফুলের ব্যাবহারের কিছু টিপস

মৌসুমী গুপ্ত

এই পৃথিবীতে এমন মানুষ বোধহয় নেই যার ফুল পছন্দ নয়। প্রকৃতিতে ফুলের যত প্রকারভেদ তা হয়তো আমরা জেনে শেষ করতে পারব না। বিজ্ঞান  বলছে ফুল আমাদের মন ভাল করে দেয় এবং ধৈর্য্য বাড়াতে সাহায্য করে। তাই ঘরের সৌন্দর্য শুধু নয় অনেক কারণেই ঘরে ফুল রাখা দরকার।

বলা হয় ফুল দাম্পত্য জীবন আরও সুন্দর করে। বাড়িতে ফুলদানিতে সাজানো ফুল সুখী দাম্পত্যের শুভ বার্তা বহন করে। দু’জনের মধ্যে ভালবাসা বাড়ায়। কোনও বাড়ির পরিবেশ শুধুমাত্র আমরা যে অংশে সেটুকুই সুন্দর রাখার জন্য যথেষ্ট নয়। দরজার পরের যে অংশে আমরা অতিথিদের আপ্যায়ন করি, সেই ড্রইং রুমেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। হলঘর বা সিড়ি কিন্তু যে কোনও বাড়ির প্রাথমিক ধারণা দেয়। তাই এই জায়গাগুলোও তো সুন্দর করে সাজানো। আর সেক্ষেত্রে উজ্বল ফুলের জুরি মেলা ভার। দরজার কাছে কাগজফুলের মত গাছ, সিড়িতে কিছু রঙিন ফুল (তা হোক না সে নকল) অতিথিদের প্রথম প্রবেশ স্মরণীয় করে রাখবে।

দেখা যায় খাওয়ার টেবিলে ফুলের উপস্থিতি অনেকেরই বেশ পছন্দ। তা সে হোক খুব সাধারণ কিছু। একটি ফুলদানি আর তার মধ্যে কিছু তারাফুল (daisy) বা লিলি এর জন্য খুব উপযুক্ত। এর জন্য টাটকা সতেজ ফুল খুব ভাল।

যে কোনও বাড়ির অন্তরসজ্জা ফুল আরও সুন্দর করে। একটি কাঁচের বাটিতে জলের মধ্যে বেলিফুল বা টিউলিপের মত রঙিন এবং সুগন্ধি ফুল বসার ঘরের টেবিলের উপর রেখে দেখুন একবার। রজনীগন্ধা বা ক্যানা ফুলের একত্রিত সজ্জাও খুব ভাল চয়েজ হতে পারে বসার ঘরে ফুলদানি সাজানোর জন্য। প্যনসি এবং ড্যফোডিলের মত ফুল জানলায় রাখার জন্য উপযুক্ত।

শোয়ার ঘরের সাজানো ফুল আমাদের পরিবেশ স্নিগ্ধ করে। ঘরের মধ্যে সাজানো গোলাপ পরিবেশ করে তোলে রোম্যান্টিক এবং বিশ্রামের উপযোগী। ছোট ছোট একাধিক ফুলের সজ্জা ঘরের বিভিন্ন কোনে ঘরকে আরও বেশী সুন্দর করে তোলে।

আপনার বাড়ি যদি ছোট হয় তবে যে কোনও ধরনের হ্যংগিং ভাসের থেকে ভালো কিছু হয় না। ঘরের সাথে মানানসয়ী লতা জাতীয় ফুল গাছ ঘরের মধ্যে ছোট টব-এ করে ঝুলিয়ে দিলে সেটি খুব সুন্দর লাগে। টব-এর কারুকার্য এবং ফুলের প্রকারভেদে আপনার ঘর একই সাথে আধুনিকতা ও বনেদিয়ানায় প্রাঞ্জল হয়ে উঠবে।

ফুল বাছাই করার সময় কয়েকটি জিনিস খেয়াল রাখবেন:



  • এমন ফুল পছন্দ করবেন যা সম্পূর্ণভাবে ফুটে গেছে।
  • ফুলগুলোকে সতেজ রাখতে মাঝে মাঝে হালকা জলের ছিটে দিতে পারেন বা স্প্রে করতে পারেন।
  • শুকনো পাপড়ি বা এমন কোনও পাতা যা দেখতে খারাপ লাগছে তা কেটে ফেলুন।
  • ফুলদানির জল নিয়মিত পরিবর্তন করুন।
  • একটি ফুলের মিশ্রণে কমপক্ষে তিন ধরনের ফুল ব্যাবহার করুন। সেটি আলাদা প্রজাতির একই রঙ-এর বা ভিন্ন রঙ-এর ফুল হতে পারে।
  • প্রয়োজনে কৃত্রিম ফুলও ব্যবহার করা যেতে পারে।
Facebook Comments