কান্নার পর চোখের ফোলা আর লালচে ভাব দূর করুন নিমেষেই

কষ্ট ছাড়া জীবন হয় না। সুখ-দুঃখ নিয়েই তো মানুষের জীবন। দুঃখ ঘনীভূত হয়ে কষ্টে পরিনত হলে বুকটা ভারী হয়ে আসে। তারপর খানিকটা একা হলে কিংবা রাতের অন্ধকার একটু বেশি গাঢ় হলেই কান্না হয়ে ঝরে পড়ে সেসব দুঃখের কুচি।। কান্না কিন্তু মোটেই খারাপ কিছু নয়। মনের কষ্ট অনেকটা হালকা হয়ে যায় এতে। কিন্তু সে তো গেল মনের যন্ত্রণা কমাবার কথা। কিন্তু হঠাৎ আসা এই দমকা কান্নার পর যে চোখটা ভীষনভাবে ফুলে থাকে! মুখের অবস্থাও এসময় হয় একেবারে নাজেহাল। কিন্তু এমন চেহারা নিয়ে তো কারোর সামনে যাওয়া মুশকিল। তাই দেখে নেওয়া যাক কান্নার বিদ্ধস্ত অবস্থা কাটিয়ে মুখ আর ফোলা চোখ ঠিক পাওয়ার উপায়।

ঠান্ডা জল

চোখের ফোলাভাব দূর করতে প্রথমেই একটি ঠান্ডা জলের পাত্র বা বরফের টুকরোর ওপরে আপনার আঙুল চেপে ধরুন। সেটা ঠান্ডা হয়ে গেলে চোখের ফুলে থাকা অংশে চেপে ধরুন। চেষ্টা করুন ফোলাভাবের নীচে জমে থাকা জল বের করে দেওয়ার। এরপর এক টুকরো বরফ বা শসা তোয়ালেতে জড়িয়ে চোখের ওপরে ধরুন। শসার টুকরো হলে বেশ কয়েকটি টুকরো রাখুন খানিক পরপর বদলে দেওয়ার জন্যে। তবে শুধু ঠান্ডা জল চোখে দিলেই হবে না, চোখের ফোলাভাব কমাতে সেই সময়ে একটু জল খেতেও হবে।

আলু ও চামচ

এছাড়া ঠান্ডা আলু কিংবা ফ্রিজের ভেতরে রেখে দেওয়া ঠান্ডা চামচ, এদের যেকোনটাই কমিয়ে দিতে পারে আপনার চোখের ফোলাভাব। নিমেষেই চোখ দেখাবে স্বাভবিকের মতো।

নুন জল

খানিকটা জল হালকা গরম করে নিয়ে তাতে একটু নুন মেশান। তবে সেই জল যেন খুব বেশি গরম বা লবনাক্ত না হয় সেটা খেয়াল রাখুন। এরপর সেটাকে এক টুকরো তুলোয় ভিজিয়ে চোখের ফোলাভাবের ওপর লাগান। ১৫ থেকে ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। স্বাভাবিক লুকে ফিরে আসাতা হবে শুধুমাত্র মুহূর্তের অপেক্ষা।



Facebook Comments