ফাঁস হলো অভিষেক-ঐশ্বরিয়ার প্রেমে পড়ার কাহিনি

এই মুহূর্তে বলিউডের সব চাইতে সুখী দম্পতি হিসেবে উল্লেখ করা হয়ে থাকে অভিষেক- ঐশ্বরিয়া জুটিকে।  ২০০৭ এর ২০ এপ্রিল হিন্দুরীতি অনুসারে অভিষেক-ঐশ্বরিয়ার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছিল মুম্বাইয়ের জুহুতে। গ্রেট বচ্চন ফ্যামিলির প্রতীক্ষাভবনে এই বিবাহ পালন করা হয়েছিল। এবং ২০১১ সালের ১৬ নভেম্বর জন্ম হয় তাঁদের একমাত্র কন্যা আরাধ্যার। প্রায় একযুগেরও বেশি সময় পার করে দিয়ে যখন দুজনে দিব্যি সংসার ধর্ম পালন করছেন মন দিয়ে, ঠিক তখনই ফাঁস হলো তাদের প্রেমে পড়ার কাহিনি। আসুন পড়ে নেওয়া যাক সেই গল্প।

ঘটনার সূত্রপাত ঘটে ২০০৭ সালে। ‘গুরু’ সিনেমার স্যুটিং চলাকালীন তাঁরা নিউ ইয়র্কের এক হোটেলের বারান্দায় নাকি ঐশ্বরিয়াকে প্রোপোজ করেছিলেন অভিষেক। একপ্রকার ফিল্মি কায়দায় ঐশ্বরিয়ার সামনে হাঁটু গেড়ে বসে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন জুনিয়র বচ্চন।

এরপর ‘যোধা আকবর’-এর শুটিংয়ে ব্যস্ত সময় পার করছিলেন  ঐশ্বরিয়া।  সেই  ছবির শুটিংয়ে যে ঐশ্বরিয়ার জীবনে কিছু একটা ঘটবে তা কল্পনাতেই আনেননি তিনি।

একটি মিডিয়া সাক্ষাৎকারে ঐশ্বরিয়া বলেন, অভিষেক যখন তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন, সেই সময় হৃত্বিকের সঙ্গে ‘যোধা আকবর’-এর শুটিং করছিলেন তিনি। যোধা আকবর’-এ ওই সময় তিনি বধূবেশে বসেছিলেন। বাস্তবে নয়, ছরি দৃশ্যের জন্যেই  ওই সময় তিনি নতুন বউ সেজে বসেছিলেন। সেই খবর বলিউডের অন্দরমহলে সেই মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়লেও পাবলিক নিউজ হতে দেরি হল প্রায়  ১১ বছর। বলিউডের দাম্পত্য বেশিরভাগই যেখানে ডিভোর্সকেন্দ্রিক। সেখানে এই ব্যতিক্রমী চিত্রও অনেকটা অফবিট সিনেমার মতো দেখায়।

Facebook Comments